রাজনীতি

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চীনের সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ।

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংকে লেখা এক চিঠিতে শেখ হাসিনা বাংলাদেশের জনগণ ও সরকারের পক্ষ থেকে এবং তাঁর নিজের পক্ষ থেকে সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিনের দুঃখজনক মৃত্যুতে গভীর শোক ও আন্তরিক সমবেদনা জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং এর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।

‘আমরা বিদেহী আত্মার চির শান্তির জন্য প্রার্থনা করি,’ এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রার্থনা এবং চিন্তাভাবনাও শোকাহত পরিবারের সদস্যদের সাথে রয়েছে এবং তারা তাদের অপূরণীয় ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হবেন আমরা সেই প্রার্থনা করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে এই শোকের সময়ে চীনের সরকার ও দেশটির বন্ধুত্বপূর্ণ জনগণের পাশে আছি।’

চিঠিতে শেখ হাসিনা পুনর্ব্যক্ত করেছেন যে, বাংলাদেশ ও চীন সময়ের পরীক্ষিত উন্নয়ন অংশীদার এবং ‘সহযোগিতার কৌশলগত অংশীদারিত্বের’ সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক উপভোগ করে।

তিনি স্মরণ করেন যে, সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিনের আমলে দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ব্যাপকভাবে শক্তিশালী হয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রী তার আত্মবিশ্বাস ব্যক্ত করেন যে, দুই বন্ধুত্বপূর্ণ দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক সামনের দিনগুলোতে আরও সমৃদ্ধ ও শক্তিশালী হবে।

খেলাধুলা

কানাডা গোলরক্ষকের উপহার কাজে লাগিয়ে শুরুতেই দলকে এগিয়ে নিলেন হাকিম জিয়াশ। সাম্প্রতিক সময়ে শুরু হওয়া সমালোচনার জবাবে জালের দেখা পেলেন ইউসেফ এন-নেসিরি। প্রথমার্ধের শেষ দিকে নিজেরা আত্মঘাতী গোল করলেও পরে আর কোনো ভুল করেনি মরক্কো। গ্রুপ সেরা হয়ে তারা পা রাখল শেষ ষোলোয়।

দোহার আল থুমামা স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার ‘এফ’ গ্রুপের ম্যাচে ২-১ গোলে জিতল মরক্কো। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোনো আসরে পেল একাধিক জয়।

সম্ভাবনায় হয়তো সবচেয়ে পিছিয়ে রাখা হয়েছিল মরক্কোকেই। আফ্রিকার এই দেশটিই দেখাল সবচেয়ে বড় চমক। ক্রোয়েশিয়া, বেলজিয়াম ও কানাডার সঙ্গে এক গ্রুপে পড়েও অপরাজিত থেকে গেল পরের ধাপে।

দুই জয় ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ সেরা মরক্কো। দুই ড্র ও এক জয়ে ৫ পয়েন্ট নিয়ে রানার্সআপ ক্রোয়েশিয়া। বেলজিয়ামের সোনালি প্রজন্মের শেষটা হলো হতাশায় ভরা। ৩ পয়েন্ট নিয়ে তিনে থেকে বিদায় নিলেন এদেন আজার-কেভিন ডে ব্রুইনেরা।

কানাডা ফিরল শূন্য হাতে। অনাকাঙ্ক্ষিত এক রেকর্ডে বসল এল সালভাদরের সঙ্গে। এই দুটি দলই কেবল বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ছয় ম্যাচে হেরেছে।

হার এড়ালেই দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত। তবে ড্রয়ের জন্য নয়, মরক্কো শুরু থেকেই খেলে আক্রমণাত্মক ফুটবল।

কানাডা গোলরক্ষকের অমার্জনীয় ভুল কাজে লাগিয়ে চতুর্থ মিনিটে এগিয়ে যায় তারা। ডিফেন্ডারের দুর্বল ব্যাকপাস ক্লিয়ার করতে ডি-বক্সের বাইরে চলে আসেন গোলরক্ষক মিলান বোরিয়ান। জোরাল শট না নিয়ে কিংবা কোনো সতীর্থকে বল না বাড়িয়ে তিনি নেন লক্ষ্যহীন শট। ছুটে এসে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে জাল খুঁজে নেন জিয়াশ!

পঞ্চদশ মিনিটে সমতা ফেরানোর দারুণ সুযোগ হাতছাড়া করেন তাহোন বিউকানান। কাইল ল্যারিনের ক্রসে দূরের পোস্টে ঠিকভাবে শট নিতে পারেননি এই ফরোয়ার্ড।

২৩তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন এন-নেসিরি। এই গোলে যথেষ্ট দায় আছে কানাডার কামাল মিলার ও স্টিভেন ভিটোরিয়া। পেছনে থাকার পরও মাঝমাঠ থেকে আসা বলের কাছে তাদের আগে যান এন-নেসিরি। ওই দুই ডিফেন্ডারের মধ্যে দিয়ে এগিয়ে কাছের পোস্ট দিয়ে জাল খুঁজে নেন সেভিয়ার এই ফরোয়ার্ড।

অনেকটা খেলার ধারার বিপরীতে ৪০তম মিনিটে সৌভাগ্যের গোলে ব্যবধান কমায় কানাডা। স্যামুয়েল অ্যাডাহকুবির ক্রস নায়েফ আগের্দের পায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়। ঝাঁপিয়ে হাত ছোঁয়াতে পারলেও শেষরক্ষা করতে পারেননি গোলরক্ষক ইয়াসিন বোনো।

চলতি আসরে এটা প্রথম আত্মঘাতী গোল, বিশ্বকাপের ইতিহাসে শততম।

যোগ করা সময়ে এন-নেসিরি জালে বল পাঠান। কিন্তু সে সময়ে আগের্দ গোলরক্ষকের সামনেই দাঁড়িয়ে থাকায় অফসাইডের জন্য মেলেনি গোল।

দ্বিতীয়ার্ধে রক্ষণে মনোযোগ বাড়ায় মরক্কো। আক্রমণাত্মক ফুটবলে চাপ বাড়ায় কানাডা। ৭১তম মিনিটে সমতা প্রায় ফিরিয়েই ফেলেছিল তারা। অ্যাটিবা হাচিনসনের হেড ক্রসবারে লেগে, গোললাইনে পড়ে ফিরে আসে। এরপরও সুযোগ ছিল। কিন্তু অ্যালিস্টার জন্সটন হেড একটুর জন্য লক্ষ্যে রাখতে পারেননি। বেঁচে যায় মরক্কো।

এরপর আরও রক্ষণাত্মক হয়ে পড়ে দলটি। সেই সুযোগে একের পর এক আক্রমণ করে কানাডা। কিন্তু গোলের তেমন কোনো সম্ভাবনা জাগাতে পারেনি তারা। আগেই বিদায় নিশ্চিত হওয়া দলটি বিদায় নিল টানা তিন ম্যাচ হেরে।

১৯৮৬ আসরের পর প্রথমবারের মতো গ্রুপ পর্ব পার হওয়া মরক্কোর সামনে এখন নতুন উচ্চতা স্পর্শের হাতছানি।

রাজনীতি

লাঠি ও আগুন নিয়ে মাঠে নামলে বিএনপির খবর আছে বলে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে উদ্বোধকের বক্তব্যে তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন।

বিএনপি মহাসচিবের সমালোচনা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, মির্জা ফখরুলের মুখে মধু আর অন্তরে বিষ। তারা ১০ ডিসেম্বর মহাসমাবেশের অনুমতি চেয়েছে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি দেওয়া হয়েছে; কিন্তু এতে তারা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন না। নতুন নতুন নাটক করে যাচ্ছেন।

কাদের বলেন, আমরা কাউকে সমাবেশ করতে বাধা দেব না। প্রধানমন্ত্রী বলে দিয়েছেন ঢাকায় বিএনপির সমাবেশে কোনো পরিবহণ ধর্মঘট থাকবে না। এরপরও যদি লাঠি ও আগুন নিয়ে মাঠে নামে তাহলে খবর আছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আন্দোলনের নামে বিশৃঙ্খলতা সৃষ্টি করে সরকার হটানো যাবে না। সরকার পরিবর্তনের একমাত্র পথ হলো নির্বাচন। জনগণের ভোটে যারা বিজয়ী হবে, তারাই সরকার গঠন করবে। নির্বাচন ছাড়া সরকার বদলে তাদের স্বপ্ন কখনো পূরণ হবে না।

তিনি বলেন, তারেক রহমান কোনো দিন রাজনীতি করবে না বলে মুচলেকা দিয়ে লন্ডনে গিয়ে বাংলাদেশ ও স্বাধীনতার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। দেশ থেকে অর্থপাচার করে বিভিন্ন দেশে সম্পদের পাহাড় গড়েছে। কত টাকা পাচার করেছে- তা উদ্ধার করা হবে।

গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী এমদাদুল হকের সভাপতিত্বে পৌরপার্কে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম।

বিশেষ অতিথি ছিলেন- আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মুহাম্মদ ফারুক খান এমপি, উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহম্মেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি ও এসএম কামাল হোসেন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নার্গিস রহমান এমপি, আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ।

সম্মেলন সঞ্চালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলী খান।

জাতীয়

বাংলাদেশ ২০২১ সালে বৈশ্বিক তৈরি পোশাক রপ্তানি বাজারে আবারো দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে। ২০২০ সালে ভিয়েতনাম বাংলাদেশকে তৃতীয় অবস্থানে ঠেলে দিয়ে দ্বিতীয় হয়েছিল।

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) বুধবার প্রকাশিত বিশ্ব বাণিজ্য পরিসংখ্যান পর্যালোচনা-২০২২ এ দেখা যায়, বিশ্বব্যাপী তৈরি পোশাক (আরএমজি) রপ্তানিতে ভিয়েতনামের অংশ ২০২০ সালের ৬.৪০ শতাংশ থেকে ২০২১ সালে ৫.৮০ শতাংশে নেমে গেছে। বৈশ্বিক আরএমজি বাজারে বাংলাদেশের অংশ অবশ্য ২০২০ সালে ৬.৩০ শতাংশ থেকে গত বছর ৬.৪০ শতাংশে উন্নীত হয়। এ অনুপাত ২০১৯ সালে ৬.৮০ শতাংশ এবং ২০১৮ সালে ছিল ৬.৪০ শতাংশ।

ডব্লিউটিওর পরিসংখ্যান পর্যালোচনায় আরও দেখা গেছে, গত বছর বাংলাদেশ থেকে আরএমজি রপ্তানি দৃঢ়ভাবে বেড়েছে এবং বার্ষিক ২৪ শতাংশ বৃদ্ধি রেকর্ড করেছে। ২০২০ সালে এই রপ্তানি একটি বড় ধাক্কার সম্মুখীন হয়েছিল এবং ভিয়েতনামের আরএমজি রপ্তানির ৭ শতাংশ বৃদ্ধির বিপরীতে বাংলাদেশে ১৭ শতাংশ হ্রাস পেয়েছিল।

বৈশ্বিক পোশাক রপ্তানি বাজারে ২০১০ সালে বাংলাদেশের অংশ ছিল ৪.২০ শতাংশ, তখন ভিয়েতনামের অংশ ছিল ২.৯০ শতাংশ। চীন ২০২০ সালে বৈশ্বিক পোশাক রপ্তানি বাজারে দেশটির অংশ ৩১.৬০ শতাংশ থেকে গত বছরে ৩২.৮০ শতাংশে উন্নীত করে প্রথম অবস্থান ধরে রেখেছে।

ডব্লিউটিওর প্রকাশনা অনুসারে ইউরোপীয় ইউনিয়ন আরএমজির দ্বিতীয় বৃহত্তম বিশ্ব রপ্তানিকারক। সুতরাং প্রযুক্তিগতভাবে বাংলাদেশ তৃতীয় বৃহত্তম বিশ্ব আরএমজি রপ্তানিকারক দেশ এবং ভিয়েতনাম চতুর্থ।

ইইউর সম্মিলিত রপ্তানি পরিসংখ্যান দেশভিত্তিক আলাদা করা হলে, বাংলাদেশ এবং ভিয়েতনাম দ্বিতীয় ও তৃতীয় শীর্ষ রপ্তানিকারক হবে। তুরস্ক ও ভারত পঞ্চম এবং ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে। এরপর রয়েছে মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, হংকং এবং পাকিস্তান।

ডব্লিউটিওর পরিসংখ্যানে আরও দেখা যায়, শীর্ষ ১০ পোশাক রপ্তানিকারকের বার্ষিক মোট রপ্তানি মূল্য দাঁড়িয়েছে ৪৬০ বিলিয়ন ডলার, যা ২০২০ সালের ৩৭৮ বিলিয়ন থেকে একটি বড় উত্থান। এ মূল্য ২০১৯ সালে ৪১১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রেকর্ড করা হয়েছিল।

জাতীয়

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, দেশ ত্যাগের আগে যেভাবে এইডস পরীক্ষা করে এইচআইভি নেগেটিভ হলে তারপর বিদেশে যেতে হয়, একইভাবে দেশে প্রবেশের সময়ও বিদেশ ফেরত কর্মীদের পুনরায় পরীক্ষা করা হবে। এতে করে আক্রান্তদের সঠিক চিকিৎসা দেওয়া যেমন সহজ হবে, অন্যদিকে তাদের পরিবারের অন্য নিরাপদ সদস্যরাও এই রোগ থেকে রেহাই পাবেন।

বৃহস্পতিবার সকালে বিশ্ব এইডস দিবস উপলক্ষ্যে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ‘দেশে প্রায় ১৪ হাজার জন এইডস রোগী আছে। এদের মধ্যে প্রায় ১০ হাজার শনাক্ত করা গেছে। যারা নিয়মিত সরকারি চিকিৎসা নিচ্ছেন। এই রোগীদের অধিকাংশই মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকার দেশগুলো থেকে এইডস আক্রান্ত হয়ে দেশে ফিরেছেন। দেশে ফিরে তারা পরিবারের কাছের সদস্যদের আক্রান্ত করছেন। দেশে ফেরার সময় নিজেরাও জানতে পারেননি যে, তারা এইডস আক্রান্ত হয়ে এসেছেন।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ সময় দেশে এইডস রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া প্রসঙ্গে জানান, ‘সরকার বিনামূল্যে এইডস রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছে। চিকিৎসা নিলে এইডস রোগীরা আরও বেশি দিন সুস্থ থাকতে পারে। তবে সামাজিক প্রতিবন্ধকতার কথা ভেবে এইডস হলে তারা গোপন রাখে। কাউকে প্রকাশ না করে অন্যদেরও আক্রান্ত করে ফেলে। এতে করে দেশে এইডস রোগীর সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে।’

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন অনুবিভাগ) মো. সাইদুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত সচিব (জনসংখ্যা, পরিবার কল্যাণ ও আইন অনুবিভাগ) ডা. আশরাফী আহমদ, এনডিসি, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি রাজেন্দ্র পোখড়া, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. আহমেদুল কবীর, লাইন ডাইরেক্টর ডা. খুরশীদ আলমসহ অন্যান্য কর্মকর্তা। সভায় সূচনা বক্তব্য দেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সৈয়দ মুজিবুল হক।

খেলাধুলা

শুক্রবার রাত ১ টায় কাতারের লুসাইল স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে ক্যামেরুনের মুখোমুখি হবে ব্রাজিল।

প্রথম দুই ম্যাচে জয়ী টুর্নামেন্ট ফেভারিট ব্রাজিল নকআউট পর্ব নিশ্চিত করায় কালকের ম্যাচটি তাদের জন্য ততটা গুরুত্বপূর্ণ না হলেও প্রতিপক্ষ ক্যামেরুন শেষ ষোলো নিশ্চিতে শেষ চেষ্টা করবে।

গোড়ালির চোটের কারণে ব্রাজিল দলের রাইট-ব্যাক দানিলো ও সুইজারল্যান্ডের বিরুদ্ধে মাসল ইনজুরির শিকার হওয়া লেফট-ব্যাক অ্যালেক্স স্যান্ড্রো ক্যামেরুনের বিপক্ষে খেলতে পারবেন না।

এবারের টুর্নামেন্টে সেলেসাওরা এখনো কোন গোল হজম করেনি। সার্বিয়ার সঙ্গে ২-০ গোলের জয়ের প্রথম ম্যাচটিতে টটেনহ্যাম হটস্পারের স্ট্রাইকার রিচার্লিসন জোড়া গোল করেছেন। এরপর সুইজারল্যান্ডের সঙ্গে পরের ম্যাচে ক্যাসেমিরোর একমাত্র গোলে জয় নিশ্চিত হয়।

ক্যামেরুনের সঙ্গে সর্বশেষ ২০১৪ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে মুখোমুখি হয়েছিল ব্রাজিল। ঘরের মাঠের ওই ম্যাচে নেইমারের জোড়া গোলে ব্রাজিল ৪-১ ব্যবধানে জয়ী হয়েছিল। দলের হয়ে বাকি গোল দুটি করেছিলেন ফ্রেড ও ফার্নান্দিনহো।

সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের সঙ্গে-সঙ্গে রেকর্ড বইয়ে নাম তুলেছে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে এ নিয়ে টানা ১৭ ম্যাচ অপরাজিত থাকলো তারা। এই রেকর্ড গড়ার পথে জার্মানিকে পেছনে ফেলেছে ব্রাজিল। ১৯৯০ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে টানা ১৬ ম্যাচে অপরাজিত ছিল জার্মানরা।

সুইজারল্যান্ডের ম্যাচ শেষে আরও একটি রেকর্ড করেছে ব্রাজিল। প্রথম ম্যাচে ব্রাজিলের গোলমুখে কোনো শট নিতে পারেনি সার্বিয়া। ব্রাজিলের গোলমুখে কোনো শট নিতে পারেনি সুইজারল্যান্ডও। বিশ্বকাপ মঞ্চে দ্বিতীয় দল হিসেবে কোনো আসরে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে প্রতিপক্ষকে গোলমুখে শট নিতে দেয়নি ব্রাজিল।

রাজনীতি

পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বিএনপি নেতারা। রাজনৈতিক নিপীড়নমূলক বেআইনি, মিথ্যা ও গায়েবি মামলা বন্ধ এবং দায়েরকৃত সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের ব্যবস্থা গ্রহণে আইজিপিকে চিঠিও দিয়েছেন তারা।

বৃহস্পতিবার পুলিশ সদর দপ্তরে আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের সঙ্গে দেখা করে বিএনপির প্রতিনিধি দল মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত এ চিঠি দেয়। প্রতিনিধি দলটি মামলা, গ্রেফতারসহ ঢাকার গণসমাবেশের স্থান নিয়েও আইজিপির সঙ্গে কথা বলেছে।

একটি সূত্র জানিয়েছে, আইজিপি গায়েবি মামলা হলে তা খতিয়ে দেখবেন বলে বিএনপি নেতাদের জানিয়েছেন। এছাড়া আগামী ১০ ডিসেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঢাকার বিভাগীয় গণসমাবেশ করার অনুমতি দিতে অনুরোধ জানালে এ নিয়ে তিনি কোনো ইতিবাচক আশ্বাস দেননি। বিষয়টি ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে কথা বলতে বলেন। তবে আইজিপি বিএনপি নেতাদের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই গণসমাবেশ করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

বৈঠকে উপস্থিত বিএনপির প্রতিনিধি দলের এক নেতা বলেন, ‘৮ বিভাগীয় গণসমাবেশের উদাহরণ টেনে আমরা বলেছি, সব কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে পালন করেছি। বিএনপির পক্ষ থেকে কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা হয়নি। উল্টো আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করেছে, ক্ষমতাসীন দল নানাভাবে বাধা দিয়ে গণসমাবেশে বিশৃঙ্খলা তৈরির অপচেষ্টা করেছে। কিন্ত আমরা সে পথে হাঁটিনি। নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বহু সমাবেশ হয়েছে। সেখানে কোনো বিশৃঙ্খলা হয়নি। পুলিশও তা বলতে পারবে না। তাহলে কেন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি দেওয়া হয়েছে। দলের সিদ্ধান্ত নয়াপল্টনে গণসমাবেশ করার। আমরা কথা দিচ্ছি, নয়াপল্টনে কোনো বিশৃঙ্খলা হবে না। সুশৃঙ্খলভাবে সমাবেশ করতে বিএনপির শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক কাজ করবেন। এজন্য বিএনপি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সহযোগিতা চায়।’

বেলা ১টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী এ বৈঠকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলুর নেতৃত্বে চার সদস্যের প্রতিনিধি দলে ছিলেন- যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি ও আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল।

আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুনের সঙ্গে বৈঠকের সময় ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে বরকত উল্লাহ বুলু সাংবাদিকদের বলেন, সারা দেশে গায়েবি মামলা হচ্ছে। প্রতিনিয়ত আওয়ামী লীগের লোকজন বোমা ফাটিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দিচ্ছে, গ্রেফতার করছে। এর তথ্যসহ একটি চিঠি মহাসচিবের পক্ষ থেকে আমরা আইজিপিকে দিয়েছি। উনি (আইজিপি) আমাদের প্রতিনিধি দলের সবার বক্তব্য শুনেছেন। বিভিন্ন জায়গায় গায়েবি মামলা করা হচ্ছে, নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে, গ্রেফতার করছে, বাড়ি তল্লাশি করছে। আমরা এর প্রতিকার চেয়েছি। আইজিপি বলেছেন এগুলো খতিয়ে দেখবেন।

ঢাকা বিভাগীয় গণসমাবেশে স্থান নিয়ে আলোচনা হয়েছে কিনা- জানতে চাইলে বুলু বলেন, আমরা বলেছি নয়াপল্টনে করতে চাই। সমাবেশের স্থানের বিষয়ে আমরা দুইটা চিঠি দিয়েছি। দুইটা চিঠিতে আমরা নয়াপল্টনের স্থান চেয়েছি। আমরা কোনো দ্বিতীয় স্থান চাইনি। উনারা বলেছেন যে, আপনারা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে করেন, আমরা সব সহযোগিতা করব। আমরা বলেছি এটা আমাদের আজকের বিষয় না। আমরা যে বিষয়টি নিয়ে এসেছি তার সঙ্গে সমাবেশের স্থান নির্ধারণ সংশ্লিষ্ট না। এটা আমাদের স্থায়ী কমিটি, মহাসচিব আছেন তারা সিদ্ধান্ত দেবেন। এটা আমাদের এখতিয়ারে নেই।

বিএনপি মহাসচিব স্বাক্ষরিত আইজিপিকে দেওয়া চিঠিতে বলা হয়- ‘সম্প্রতি পুলিশ কর্তৃক রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে গায়েবি মিথ্যা মামলা দায়ের এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন চরমতম পর্যায়ে পৌঁছেছে।’ একটি পত্রিকার প্রতিবেদন তুলে ধরে বলা হয়, ‘ঢাকার প্রতিটি ওয়ার্ডে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের বিস্তারিত তথ্যসহ তালিকা প্রস্তুত করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ।’

আন্তর্জাতিক

ইউক্রেন এবার মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ করেছে রাশিয়ার বিরুদ্ধে। রুশ সেনার হাতে বন্দি বহু ইউক্রেনীয় নারী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন।

এ পরিস্থিতিতে ইউক্রেনের ‘ফার্স্টলেডি’ ওলেনা জেলেনস্কা দাবি করেছেন, ইউক্রেনীয় নারীদের ধর্ষণ করতে রুশ সেনাদের স্ত্রীরাই উৎসাহিত করছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম স্কাই নিউজের খবরে বলা হয়েছে, সম্প্রতি লন্ডনে একটি আন্তর্জাতিক সেমিনারে বক্তব্য রাখেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির স্ত্রী ওলেনা জেলেনস্কা। ওই সেমিনারে আলোচ্য বিষয় ছিল ‘যুদ্ধের হাতিয়ার ধর্ষণ’।

আলোচনায় ইউক্রেনে রুশ হামলার প্রসঙ্গ টেনে ৪৪ বছরের ওলেনা বলেন, কারও ওপর ক্ষমতা প্রদর্শনের সবচেয়ে বর্বর ও খারাপ পন্থা হচ্ছে ধর্ষণ। যুদ্ধের সময় যারা এ ধরনের হামলার শিকার হন, তারা নিরাপত্তার খাতিরেই মুখ খোলেন না।

রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ এনে তিনি আরও বলেন, রুশ বাহিনী ইউক্রেনীয় মেয়েদের ধর্ষণ করতে বলছেন তাদের স্ত্রীরাই। যুদ্ধের হাতিয়ার হিসেবে ধর্ষণকে ব্যবহার করছে তারা। আর এ নিয়ে কোনো রাখঢাকও করছেন না রাশিয়ার সেনারা।

উল্লেখ্য, ইউক্রেনে যুদ্ধ শুরু হওয়ার মাস দুয়েক পরেই একটি অডিও ক্লিপ শেয়ার করেছিল ইউক্রেনের নিরাপত্তা বাহিনী। শিরোনাম ছিল— ‘সিকিউরিটি সার্ভিসে ধরা পড়ল: ইউক্রেনীয় নারীদের ধর্ষণের জন্য তাদের স্বামীদের ছাড়পত্র দিয়েছে রাশিয়ান আক্রমণকারীদের স্ত্রীরা।’ যদিও ৩০ সেকেন্ডের ওই বিস্ফোরক অডিও ক্লিপের সত্যতা যাচাই করা হয়নি। ১২ এপ্রিল ওই অডিও ক্লিপটি প্রকাশ্যে আনে রেডিও লিবার্টি নামের এক সংস্থা।

প্রসঙ্গত, বুচা শহরের গণহত্যা নিয়ে রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিন্দায় সরব হয়েছে গোটা বিশ্ব। ইউক্রেনের তরফে জানানো হয়েছিল, বহু মহিলাকেই বুচা বেসমেন্টে আটক করে রেখেছিল রুশ বাহিনী। তাদের মধ্যে অনেকেই অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। সমর বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজধানী কিয়েভের দখল নিতে না পেরেই নির্বিচারে পাশের শহরগুলোতে ধ্বংসলীলা চালিয়েছে রুশ সেনা।

রাজনীতি

বিশিষ্ট আইনজীবী ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ সর্বক্ষেত্রে অব্যবস্থাপনা, দলীয়কারণ ও দুর্নীতির ফলে দেশ আজ ভয়াবহ সংকটের দিকে যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন ও অর্জনগুলো দেশের কিছু সংখ্যক দুর্নীতিবাজ ও স্বার্থন্বেষী মহলের জন্য আজ বিসর্জন হতে চলছে।

বৃহস্পতিবার গণফোরামের উদ্যোগে সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে ড. কামাল হোসেন এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলিতে দলীয়করণের সুযোগ নিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ যারা আত্মসাৎ করেছে তাদের বিরুদ্ধে সরকার কার্যকর কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে নাই। আর্থিক খাতে এসব দুর্নীতিগ্রস্থদের বিচারহীনতা ক্রমাগত অর্থপাচার, লুটপাট আজ মহামারি আকার ধারণ করছে।

দেশের বাইরে চলে যাওয়ার পূর্বপ্রস্তুতি হিসেবেই সরকার বিদেশে অর্থ পাচার করছে বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, এটা খুবই দুঃখজনক যে সরকার দেশের কথা একদমই মনে না রেখে বিদেশে অর্থ পাচার করছে। দেশের প্রতি তাদের আস্থা নেই। তারা নিজেরাও বাইরে চলে যাবে।

ড. কামাল হোসেন এ সময় বলেন, টাকা পাচারের ব্যাপারে সবাইকে সজাগ করতে হবে। সবাইকে সংগঠিত করে জাতীয় অর্থনীতিকে রক্ষায় পাহারা দিতে হবে। ব্যাংক থেকে কোথায় টাকা যাচ্ছে, কিভাবে যাচ্ছে— এসব বিষয়ে খোঁজখবর রাখতে হবে। প্রয়োজনে এসব অনিয়ম বন্ধ করতে আইনি ব্যবস্থা নিতে হবে।

সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে যেখানে দুর্ভিক্ষের আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছে সেখানে ব্যাংকসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে লুটপাটের ঘটনা জাতির জন্য দুর্ভাগ্যজনক। দুর্নীতি ও লুটপাটের রিরুদ্ধে আমাদের সোচ্চার হতে হবে। ড. কামাল হোসেন বলেন, অবিলম্বে এসব চিহ্নিত দুর্নীতিবাজ, অর্থপাচারকারী ও লুটেরাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির উদ্যোগ নিতে ব্যর্থ হলে দেশে মারাত্মক অর্থনৈতিক সংকট তৈরি হবে।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের তথ্য গুরুত্ব না দিলে জাতীয় অর্থনীতিকে বাঁচানো যাবে না উল্লেখ করে ড. কামাল হোসেন বলেন, অর্থনৈতিক অবস্থা ভেঙে পড়লে বেকারত্ব বাড়বে, আয় কমে যাবে, ব্যবসা-বাণিজ্যে মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হবে, অর্থাৎ সার্বিকভাবে সবার ক্ষতি হবে। এখান থেকে উত্তরণের জন্য দ্রুত ঐক্যবদ্ধ হয়ে এসব নেতিবাচক ও সমাজবিরোধী কাজ, বিশেষ করে দুর্নীতি ও অর্থ পাচার প্রতিরোধ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, দেশে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে সব রাজনৈতিক দল ও জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। একটি সমৃদ্ধ ও অগ্রসরমান বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করতে হলে জাতীয় ঐকমত্য গড়ে তুলতে হবে।

দলের সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. মিজানুর রহমান, কেন্দ্রীয় নেতা মফিজুল ইসলাম খান কামাল, এসএম আলতাফ হোসেন, মোশতাক আহমদ, শাহ নূরুজ্জামান, শফিউর রহমান খান, মো. ইয়াসিন প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বিনোদন

প্রথম বিয়ে টেকেনি সারিকার। নাটক ও মডেলিংয়ের জনপ্রিয় এই মুখ পাঁচ বছর পর আবারও বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন। ক্যালেন্ডার ঘেঁটে শুভদিন দেখেই বিয়েটা করেছিলেন সারিকা। ০২.০২.২২, মানে ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসের ২ তারিখ। ভেবেছিলেন, মিলে যাওয়া সংখ্যার মতো জীবনসঙ্গীর সঙ্গে বাকি পথটা মিলেমিশেই চলতে পারবেন। কিন্তু তা আর হচ্ছে কই!

বিয়ের বছন না ঘুরতেই দ্বিতীয় সংসারও ভাঙনের দ্বারপ্রান্তে। স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন সারিকা।

নায়িকার অভিযোগ স্বামী তাকে চর্টার করত। এখন আলাদা থাকছেন তারা।

সংসার জীবনে অতিষ্ট সারিকা বিচ্ছেদের পথেই হাঁটছেন।

স্বামী নির্যাতন করত জানিয়ে এই নায়িকার ভাষ্য, সে (স্বামী) আমাকে শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক-সব দিকেই টর্চার করেছে। আমি তার স্ত্রী, আমি একজন শিল্পী, আমাকে সে যেভাবে টর্চার করেছে তা সহ্য করার মতো নয়। আমাদের বিয়ের সময় ২০ লাখ টাকা দেনমহর ধার্য করা হয়। আমার পরিবারের পক্ষ থেকে ২৫ লাখ টাকার স্বর্ণালংকার, আসবাবসহ সাংসারিক জিনিসপত্র দেওয়া হয়। বিয়ের কয়েকদিন যেতে না যেতেই সে আমার কাছে ৫০ লাখ টাকা দাবি করে। আমার পরিবার থেকে তার জন্য টাকা আনতে বলে। আমি রাজি হইনি বলে সে আমাকে অকথ্য গালাগাল করে, মারধর করে। এ জন্যই আমি মামলা করেছি।

এ ঘটনার কারণে সংসারের ইতি টানছেন নাকি—এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমি আমার ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদে মামলা করেছি, সেটির বিচার আদালত করবেন। আদালতের রায়ের অপেক্ষায় আছি। আদালত বিচার করার পর ইতি টানা বা অন্য কিছু নিয়ে ভাবব।

সাত বছর চুটিয়ে প্রেম করে ২০১৪ সালের ১২ আগস্ট পুরান ঢাকার লক্ষ্মীবাজারের বাসিন্দা মাহিম করিমকে বিয়ে করেছিলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী সারিকা। সেই ঘরে একটি মেয়েও আছে তার। কিন্তু ২ বছরের মাথায় সারিকার সেই সংসার ভেঙে যায়।

ডিভোর্সের পর কিছুটা ছন্নছাড়া হয়ে পড়েন সারিকা। অভিনয় থেকে কিছু সময় দূরে ছিলেন। নতুন করে কোনো সম্পর্কেও জড়াননি। পাঁচ বছর পর বিয়ে করেছিলেন।